যে বিশেষ কারনে খালেদার আপিল দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশে নাখোশ ফখরুল

কারাবন্দি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়ে দেয়া সাজার বিরুদ্ধে আপিল নিষ্পত্তিতে সময় বেঁধে দেয়ার সমালোচনা করেছে বিএনপি। সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশকে সরকারের ইচ্ছার প্রতিফলন হিসেবে দেখছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।১৬ মে বিএনপি নেত্রীকে চার মাসের জামিন দিয়ে হাইকোর্টের রায় বহাল রেখে দেয়া রায়ে দণ্ডের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছে আপিল বিভাগ। ফখরুলের দাবি, এমন আদেশ নজিরবিহীন।শুক্রবার নয়াপল্টনের ভাসানী ভবনে একটি গানের সিডি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন বিএনপি নেতা। অনুষ্ঠানে ‘কোটি জনতার মা’ শিরোনামে খালেদা জিয়াকে নিয়ে লেখা একটি গানের সিডির মোড়ক উন্মোচন করা হয়। গানটি লিখেছেন বিএনপির ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল।

খালেদার আপিলের নিষ্পত্তিতে সময় বেঁধে দেয়ার সমালোচনা করে ফখরুল বলেন, ‘মাত্র তিন-চার মাসের মধ্যে আপিলকে চূড়ান্ত নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দেয়ার কোনো নজির নেই।’‘অত্যন্ত দ্রুতার সঙ্গে এই মামলাটিকে একটি চূড়ান্ত পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য তারা কাজ করছে। দুর্ভাগ্য হচ্ছে এই আদেশ নির্দেশগুলো আসছে উচ্চ আদালত বিচার বিভাগ থেকে।’‘খালেদা জিয়াকে সরকার ভয় পায়। সেজন্য তাকে কারাবন্দি করে রেখেছে। তারা জানে যদি খালেদা জিয়া বাইরে থাকেন তাহলে জনগণের জোয়ার সৃষ্টি হবে। আগামী নির্বাচনে যদি খালেদা জিয়া অংশ নেয় তাহলে তাদের ভরাডুবি হবে। এই কারণে তারা অত্যন্ত সুকৌশলে চক্রান্ত করে নির্বাচনের আগে এই মামলার কার্যক্রম দ্রুত শেষ করতে চায়।’ক্ষমতায় টিকে থাকতে সরকার সব রাষ্ট্রীয় কাঠামো ধ্বংস করে দিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপি নেতা। বলেন, ‘মানুষের ওপরে যেকোনো অন্যায়, অত্যাচার ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে আস্থার একমাত্র জায়গা ছিল একমাত্র বিচার বিভাগ। দুর্ভাগ্য আমাদের। আজকে বিচার বিভাগকেও বর্তমান সরকার তারা তাদের কাজে লাগানোর চেষ্টা করছে।’

Facebook Comments