আবারও খালেদার মুক্তির দাবিতে নতুন কঠোর কর্মসূচি ডাক: এবারের কর্মসূচিতে যা থাকছে…

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কারান্তরীণ খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে লিফলেট বিতরণ ও প্রতিবাদ কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি। আজ বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ মন্তব্য করেন।

কর্মসূচি ঘোষণা করে রিজভী বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আগামী ১ এপ্রিল লিফলেট বিতরণ, ৩ এপ্রিল প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করবে বিএনপি। এ ছাড়া ৭ এপ্রিল বরিশাল এবং ১০ এপ্রিল সিলেটে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান বিএনপির এই নেতা।

রিজভী বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং মিথ্যা ও সাজানো মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে সাজা দেয়ার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের প্রস্তুতি চলছে।

অথচ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে এখনও এই সমাবেশের অনুমতি মেলেনি। সেখানে সমাবেশ হলে জনগণের ঢল নামবে। আর এ ভয় থেকেই সরকার সমাবেশের অনুমতি দিচ্ছে না।

তিনি বলেন, ভোটারবিহীন সরকার বিএনপি চেয়ারপারসন, তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও দেশের বৃহৎ রাজনৈতিক দলের প্রধান যিনি গণতন্ত্রের মা হিসেবে জনগণের মধ্যে স্বীকৃতি পেয়েছেন, সেই দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে আগামী নির্বাচন থেকে মাইনাস করতে অসত্য মামলায় বন্দি করে রেখেছে।

এমনকি তার জামিনে সরাসরি বিরোধিতা করছে সরকার। বর্তমান সরকার এখন মাইনাস টু নয়, মাইনাস ওয়ান ফর্মুলা বাস্তবায়ন করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ে খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। এর পর থেকে তিনি নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন। আজ এ মামলার শুনানি মুলতবি করে আগামী ৫ এপ্রিল দিন ধার্য করা হয়েছে।

খালেদার কী হয়েছে জানেন না আইনজীবীরা

অসুস্থতার কথা জানিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আজ বুধবার (২৮ মার্চ) আদালতে হাজির করা হয়নি। এই অসুস্থতার খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া।

খালেদা জিয়ার কী হয়েছে, রাষ্ট্রপক্ষের তরফ থেকে তার কিছুই জানানো হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

বুধবার (২৮ মার্চ) দুপুরে সাংবাদিকদের সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, ‘আজ খালেদা জিয়াকে আদালতে নিয়ে আসা হয়নি। মামলার কাস্টডি অফিস থেকে জেনেছি খালেদা জিয়া কারাগারে অসুস্থ। আমরা খুবই উদ্বিগ্ন এবং চিন্তিত। তিনি কী রোগে ভুগছেন সেব্যাপারে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে কিছুই জানানো হয়নি।
আমাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে মামলার জামিন ৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। আগামী ৫ এপ্রিল মামলার পরবর্তী শুনানির তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে

Facebook Comments