বাস থেকে নামিয়ে মহিলা মেম্বরকে পিটিয়ে হাসপাতালে

ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তোলায় নাসিমা আক্তার মায়া নামের জেলার এক শ্রেষ্ঠ জয়ীতাকে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে।হরিণাকুন্ডুর ভবানীপুর গ্রামের দিন মোহাম্মদ মোল্লার মেয়ে নাসিমা আক্তার মায়া স্থানীয় তাহেরহুদা ইউনিয়নের সংরক্ষিত-১ ওয়ার্ডের মেম্বর ও মায়েদের স্বপ্ন পুরণ মহিলা উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক। তিনি মঙ্গলবার রাতে হরিণাকুন্ডু উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে ভর্তি হয়েছেন।মঙ্গলবার বিকালে হরিণাকুন্ডু উপজেলার ভালকী বাজারে চলন্ত বাস থেকে নামিয়ে তাকে প্রহার করা হয়। এতে তিনি মারাত্মক আহত হন।

এ সময় তার কাছ থেকে জরুরী কাগজপত্র, একটি দামী ঘড়ি, সোনার আংটি ও ৪২ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়া হয়। নাসিমা আক্তার মায়া জানান, বিকালে বাস যোগে তিনি স্থানীয় কাপাশহাটিয়া বাজারে জনৈক কামরুলের দোকানের বাকী টাকা পরিশোধ করতে যাচ্ছিলেন।
এ সময় কাপাশহাটিয়া ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন ভালকী বাজার নামক স্থানে মহিলা মেম্বর শিখা, ওহিদ মেম্বর, সাব্বির মেম্বর, আরিফ, ইউনুস আলী ও মুকুলের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী চলন্ত বাস থামিয়ে মায়ার উপর হামলা চালায়।

হারিণাকুন্ডুর তাহেরহুদা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুনজুরুল আলম মনজেরের বিরুদ্ধে দুর্নীতির লিখিত অভিযোগ দেয়ার কারণে তার উপর এই হামলা চালানো হয় বলে ইউপি মেম্বর নাসিমা আক্তার মায়া জানান।তিনি আরো অভিযোগ কওে বলেন, চেয়ারম্যান মুনজুরুল আলম মনজের টাকার বিনিময়ে ভিজিডি কার্ড, বয়স্ক, প্রতিবন্ধি ও বিধবা ভাতা দিয়ে থাকেন। টিআর, কাবিটা ও এলজিএসপির টাকা লোপাট করেন। মেম্বরদের নিয়ে কোন মিটিং বা সভা করেন না। রাস্তার ধারের গাছ বিক্রি করে সাবাড় করে দেন। হাট ইজারা ও ওয়ান পার্সেন্টের টাকা ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে নয়ছয় করছেন। এ সব নিয়ে তিনি সোচ্চার ছিলেন। বিষয়টি নিয়ে হরিণাকুন্ডু থানার ওসি কে.এম শওকত হোসেন বুধবার জানান, জয়ীতা নাসিমা আক্তার মায়া থানায় এসেছিলো। আমি তাকে অভিযোগ দিতে বলেছি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। বিষয়টি নিয়ে তাহেরহুদা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুনজুরুল আলম ওরফে মনজেরকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *