মিয়ানমার যে সকল দেশ থেকে অস্ত্র কিনেছে তাঁরাই মিয়ানমারে সাপোর্ট করছে??

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অধিকাংশ অস্ত্র আসে চীন, রাশিয়া, ভারত, ইসরাইল ও ইউক্রেন থেকে।১৯৪৮ সালে ব্রিটিশদের কাছ থেকে স্বাধীনতা অর্জনের পর থেকেই দেশটির রাজনীতি ও বৈদেশিক নীতিতে সেনাবাহিনীর উল্লেখযোগ্য প্রভাব রয়েছে। মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে অস্ত্র সরবরাহকারী দেশ হচ্ছে চীন, রাশিয়া, ভারত, ইসরাইল ও ইউক্রেন। রাশিয়া ও চীনের কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র কিনে মিয়ানমার। ১৯৯০ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত মিয়ানমার সেনাবাহিনী যে যুদ্ধবিমান কিনেছে তা হচ্ছে- চীন থেকে ১২০টি, রাশিয়া থেকে ৬৪টি, পোল্যান্ড থেকে ৩৫টি, জার্মানি থেকে ২০টি, সাবেক যুগোস্লাভিয়া থেকে ১২টি, ভারত থেকে ৯টি, সুইজারল্যান্ড থেকে ৩টি ও ডেনমার্ক থেকে ১টি।

ক্ষেপণাস্ত্র কিনেছে- রাশিয়া থেকে ২ হাজার ৯৭১টি, চীনের কাছ থেকে কিনেছে ১ হাজার ২৯টি, বেলারুশ থেকে ১০২টি, বুলগেরিয়া থেকে ১০০টি ও ইউক্রেন থেকে ১০টি। নৌজাহাজ কিনেছে- চীন থেকে ২১টি, সাবেক যুগোস্লাভিয়া থেকে ৩টি ও ভারত থেকে কিনেছে ৩টি। সাঁজোয়া যান চীন থেকে কিনেছে ৬৯৬টি, ইসরায়েল থেকে ১২০টি, ইউক্রেন থেকে ৫০টি ও ভারত থেকে কিনেছে ২০টি। কামান কিনেছে- চীনের কাছ থেকে ১২৫টি, সার্বিয়া থেকে ১২০টি, রাশিয়া থেকে ১০০টি, ইসরায়েল থেকে ২১টি, উত্তর কোরিয়া থেকে ১৬টি ও ভারত থেকে ১০টি।

মিয়ানমার যে সকল দেশ থেকে অস্ত্র কিনেছে তাঁরাই মিয়ানমারে সাপোর্ট করছে??

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *