মগের (বৌদ্ধ )ফাদে আমরা পা দিব না । মানবতার জয় হবেই

রোহিঙ্গা ইস্যুকে ধামাচাপা দিতে মিয়ানমার প্রতিনিয়ত চাচ্ছে বাংলাদেশের সাথে সীমান্তে সংঘর্ষে জড়াতে। মিয়ানমার চাইছে আমরা তাঁদের বিমান ভূপাতিত করি। কিন্তু বাংলাদেশ অত্যন্ত বিচক্ষণতার সাথে তাঁদের পাতা ফাঁদে পা দিচ্ছে না।এখন পর্যন্ত রোহিঙ্গা ইস্যুতে আমাদের অবস্থান মিয়ানমারের চাইতে অনেক সুদৃঢ়। মিয়ানমার এর আগে এতটা বেকায়দায় পড়েনি। ইউরোপীয় পার্লামেন্ট, জাতিসংঘসহ অনেক আন্তর্জাতিক সংস্থা, মানবাধিকার সংস্থা সবাই এখন প্রমাণ নিয়ে হাজির মায়ানমারের বিপক্ষে ইতিমধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়নে অবরোধ আরোপের প্রস্তাব উঠেছে মায়ানমারের বিপক্ষে এর পর থেকেই পাগলা কুকুরের মতন আচরণ শুরু করেছে অনেক দেশ মিয়ানমারকে গণহত্যার দোষে দোষী করছে। এ পরিস্থিতিতে মিয়ানমারের সাথে ঝামেলায় জড়ানো মানে আমাদের সংকটকে খাদের মধ্যে ঠেলে দেওয়া।ইতিমধ্যে আমাদের সংকট ১০ লাখের বেশী রোহিঙ্গা। কীভাবে তাঁদের ফেরত পাঠানো যায় পূর্ণ নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়ে সাথে কিভাবে তাঁদের নাগরিক ও কফি আনান রিপোর্ট বাস্তবায়ন করা যায় — সেটাই আমাদের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ।রাষ্ট্র খুব সতর্কতার সাথে, বিচক্ষণতার সাথে রোহিঙ্গা ইস্যুতে সামনের দিকে এগোচ্ছে।মোট কথা, মিয়ানমারের হেলিকপ্টার ভূপাতিত করা মানে তাঁদের আন্তর্জাতিক পরিসরে কথা বলার স্পেস তৈরি করে দেওয়া,রোহিঙ্গা ইস্যুকে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডল থেকে উধাও করে দেওয়ার সুযোগ করে দেওয়া।আমরাও ফেসবুক জেনারেল হিসেবে অনেক অংক কষতেই পারি, নিজস্ব ভাবনা জানাতে পারি– তাতে দোষের কিছু নেই। কিন্তু কিছু না জেনে, না বুঝে কিংবা ফেসবুকে আমরা যেমন সক্রিয়, তেমনি আমাদের বাহিনীর সদস্যরা দেশের চিন্তা বাদ দিয়ে নাকে তেল দিয়ে ঘুমাচ্ছেন– এমন ভাবনা দেশের জন্য ক্ষতিকর।’

Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *